‘বন্ধুত্ব চাই বৈরীতা না’

বহিঃশত্রুর আক্রমণ থেকে আত্মরক্ষায় শক্তিশালী সশস্ত্রবাহিনী প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বারোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার সকালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৮টি ইউনিট/সংস্থার পতাকা উত্তোলন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি একথা বলেন। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৭ম পদাতিক ডিভিশনের সদর দপ্তর লেবুখালি, পটুয়াখালি সেনানিবাসের অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ যুদ্ধ নয় বরং শান্তি চায় এবং সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব বজায় রেখেই এগিয়ে যেতে চায় বলে বক্তব্যে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি এও বলেন, যদি দেশ কখনো আক্রান্ত হয়, সেটা মোকাবেলা করার মত শক্তি যেন অর্জন করা যাত, সেভাবেই প্রস্তুতি নিয়ে দেশকে তৈরি রাখতে চান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী দৃঢ়কণ্ঠে বলেন, ‘আবারো বলবো আমরা শান্তি চাই। বন্ধুত্ব চাই। বৈরীতা চাই না, যুদ্ধ চাই না।’ যুদ্ধের ভয়াবহ রূপ নিজ চোখে প্রত্যক্ষ করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন যুদ্ধের ধ্বংসযজ্ঞে দেশকে যুক্ত করতে চান না। শান্তির পথ বেয়ে প্রগতির পথে এগিয়ে যাওয়াকেই লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর কন্যা।

যখনই আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করেছে তখনই সশস্ত্রবাহিনীর উন্নয়নে সরকার পদক্ষেপ নিয়েছে, মনে করিয়ে দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা চেয়েছি সশস্ত্রবাহিনীর প্রতিটি সদস্যের জীবন মান উন্নত হোক এবং সমগ্র বাংলাদেশের মানুষেরই জীবন মান উন্নত হোক।’ সে লক্ষ্যেই তাঁর সরকার কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

আপনার মতামত জানান

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন