শিক্ষার্থীদের ছুটি বেড়েছে

দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আগামী ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি অনলাইনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি আরও বলেন, দেশের সবার স্বাস্থ্যঝুঁকিকে বিবেচনায় নিয়ে গত মার্চ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছে সরকার। এসময়ের মধ্যে সরকার সীমিত পরিসরে কিছু প্রতিষ্ঠান খোলা যায় কি না, তা সহ বিভিন্ন বিষয় পর্যালোচনা করেছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে বিভিন্ন তথ্য আরও পর্যালোচনা করে দেখা হবে। পরিস্থিতি অনুকূল হলে সীমিত পরিসরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার চেষ্টাও করা হবে বলে জানান দীপু মনি।

গত ৮ মার্চ দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর ১৭ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। এরপর সেই ছুটি বাড়তে বাড়তে ঠেকেছে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত।

এদিকে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে এরই মধ্যে ২০২০ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা, জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা এবং এইচএসসি, দাখিল ও সমমান পরীক্ষাও বাতিল করার ঘোষণা এসেছে আগেই। মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার বদলে অ্যাসাইনমেন্ট মূল্যায়নের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদেরকে পরবর্তী ক্লাসে তোলা হবে। চলতি শিক্ষাবর্ষে ৩০ দিনে শেষ করা সম্ভব এমন একটি সিলেবাস শেষ করতে হবে শিক্ষার্থীদের। অষ্টম শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণিতে ওঠার কথা যেসব শিক্ষার্থীদের, অর্থাৎ যাদের জেএসসি বা জেডিসি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল, তাদেরকে গ্রেডিং ছাড়াই সনদ দেওয়া হবে। ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা না নিয়ে অর্জিত শিখন ফল মূল্যায়নের মাধ্যমে পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ ঘোষণা করা হবে।

আপনার মতামত জানান

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন