‘পারমাণবিক শক্তি ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে’

রূপপুরে প্রথম পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের মধ্য দিয়ে ভারত ও পাকিস্তানের পরে পরমাণু শক্তিকে কাজে লাগানোর ক্ষেত্রে বাংলাদেশ তৃতীয় এশীয় দেশ হয়ে উঠবে। এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালুর পরে মানুষের কল্যাণে পারমাণবিক শক্তির ইতিবাচক ব্যবহারের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী নির্মাণাধীন পাবনার রূপপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে বলেন, বাংলাদেশ সবসময় পারমাণবিক অস্ত্রের বিরোধী। শান্তির পথিকৃৎ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বজুড়ে এ ব্যাপারে সোচ্চার রয়েছেন, এ কথা জানান তিনি। বাংলাদেশ পারমাণবিক শক্তির কল্যাণমূলক ব্যবহারের পক্ষে, এটি বিশ্বে প্রমাণ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ভারত ও পাকিস্তান যখন পারমাণবিক বোমা তৈরি করেছিল, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দক্ষিণ এশিয়ার এই দুটি দেশের মধ্যে পারমাণবিক প্রতিযোগিতা নিয়ন্ত্রণে রাখার উদ্যোগ নিয়েছিলেন, সে কথা মনে করিয়ে দেন ড. একে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সরকার সবসময় জনকল্যাণে কাজ করে। তবে, বাংলাদেশ কোনো আঞ্চলিক ভূ-রাজনৈতিক বিষয়ে জড়িত হবে না, তাও উল্লেখ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান এবং পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত জানান

দয়া করে আপনার মন্তব্য লিখুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন